খেলা

তাসকি-সৌম্যের ব্যাট-বল বিক্রি হলো সাড়ে আট লাখ টাকায়

প্রিয় স্মৃতিময় ব্যাট-বল নিয়ে করোনাযুদ্ধে এগিয়ে এসেছেন সৌম্য সরকার ও তাসকিন আহমেদ।করোনার বিরুদ্ধে লড়তে তহবিল সংগ্রহে সৌম্য প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির ব্যাটটি নিলামে তুলেছিলেন। তাসকিন ওয়ানডেতে পাওয়া হ্যাটট্রিকের বলটি নিয়ে এগিয়ে এসেছিলেন।

রোববার (৩ মে)  প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে চলা নিলামে সৌম্যর ব্যাট ও তাসকিনের বল বিক্রি হয়েছে যথাক্রমে সাড়ে চার লাখ ও চার লাখ টাকায়। এই নিলাম থেকে পাওয়া অর্থের পুরোটাই করোনাভাইরাস দুর্গতদের সাহায্যে খরচ করা হবে। আয়োজকরা জানিয়েছেন, ব্যাট ও বল দুটিই কিনে নিয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি ব্যাংক। প্যাকেজ হিসেবে ব্যাংকটি সাড়ে আট লাখ টাকা বিড করেছে। সোমবার সকল আনুষ্ঠিনতা শেষে ব্যাংকটির নাম ঘোষণা করবে আয়োজকরা।

২০১৯ সালে সৌম্য নিউজিল্যান্ডের মাটিতে স্বাগতিক দলের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন। ৯৪ বলে সেঞ্চুরি তুলে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম টেস্ট সেঞ্চুরির রেকর্ড ছুঁয়েছিলেন সৌম্য। বোল্ট, সাউদি, ওয়াগনারদের বিপক্ষে বিরুদ্ধ কন্ডিশনে ১৪৯ রানের নজরকাড়া ইনিংস খেলেছিলেন। সৌম্যর সঙ্গে ওই ম্যাচে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও (১৪৬)।

নিজের ব্যাট নিয়ে সৌম্য বলেছেন,‘সেঞ্চুরির ব্যাটটা আমার একদম নতুন ছিল। মুমিনুল ভাই সব সময় বড় ম্যাচে নতুন ব্যাট দিয়ে খেলার কথা বলেন। আমার প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির কারণে ব্যাটটায় অনেক স্মৃতি জড়িত আছে। অনেক আবেগ আছে। আমি চেয়েছিলাম যে ব্যাটটা অনেক সময় আমার কাছে থাকুক। কিন্তু এখন করোনার সময় ব্যাটটা নিলামে তোলায় প্রস্তাব পাওয়ার পর দ্বিতীয়বার চিন্তা করিনি। আমার এই ব্যাটের কারণে যদি দুইটা মানুষের উপকার হয় তাহলে আমি নিজেকে ভাগ্যবান মনে করবো।’

তাসকিন শ্রীলঙ্কার মাটিতে পেয়েছিলেন হ্যাটট্রিকের স্বাদ। স্বাগতিক ইনিংসের শেষ ওভারে আশেলা গুনারত্নে, সুরঙ্গা লাকমাল ও নুয়ান প্রদ্বীপের উইকেট নেন। পঞ্চম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক পেয়েছিলেন অভিষেকে পাঁচ উইকেট পাওয়া এ পেসার।

তাসকিনের বাবা আব্দুর রশীদ যোগ দেন লাইভ অনুষ্ঠানে। তিনি তাসকিনের ক্রিকেট প্রেমের গল্প শোনান। তিনি বলেন,‘আগারগাঁওয়ে বাণিজ্য মেলা ওকে নিয়ে গিয়েছিলাম। তখন খেলা কেনার বদলে ও ব্যাট-বল কিনেছিল। ওই ব্যাট দিয়েই সারাক্ষণ মাঠে খেলত।দেখ গেত ২৪ ঘন্টার অর্ধেক সময় ও মাঠে থাকত।

একদিন আমি আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ফিরে দেখি ও বাসায় নেই। ওর মা’ও জানে না ও কোথায়। আমি জানতাম ও মাঠেই আছে। সত্যিই ও মাঠে ছিল। পরে ব্যাট দিয়ে মারতে মারতে ওকে আমি বাসায় নিয়ে আসি।’

এই লাইভে যুক্ত হন সৌম্য সরকারের স্ত্রী প্রিয়ন্তি দেবনাথ পূজা। দর্শকদের অনুরোধ গান গেয়ে শোনান তিনি।

Show More

Related Articles

Back to top button