বিনোদন

এক ভাইরাস প্রলয় ঘটাবে- অনুমান করেছিলেন মাইকেল জ্যাকসন!

বিশ্বজুড়ে প্রলয় সৃষ্টি করেছে ক্ষুদ্র আণুবীক্ষণিক জীব নভেল করোনাভাইরাস। গুঁড়িয়ে দিচ্ছে মানবজাতির সভ্যতা ও বিজ্ঞানের দাম্ভিকতা। কোনো ওষুধ নেই, প্রতিষেধক নেই। শুধুই মৃত্যুর অপেক্ষা। ইতিমধ্যে মারণ এই ভাইরাসের কালো থাবায় প্রাণ গেছে প্রায় ২ লাখ ৩০ হাজার মানুষের। সেই সাথে আক্রান্ত হয়েছে ৩২ লাখ ৪৮ হাজারেরও বেশি মানুষ।

তবে এখন থেকে তিন দশক আগে কিংবদন্তি পপ স্টার মাইকেল জ্যাকসন এক ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন- একটা মারণ ভাইরাস বিশ্বজুড়ে প্রলয় সৃষ্টি করবে, বহু মানুষের প্রাণ কেড়ে নেবে! এমনকি ভাইরাসের ভয়ে তিনি সে সময়েও মাস্ক ব্যবহার করতেন। এমন এক বিস্ময়কর দাবি করেছেন খোদ মাইকেল জ্যাকসনের দেহরক্ষী ম্যাট ফিডেস।

বর্তমানে করোনা আতঙ্কে কাঁপছে গোটা বিশ্ব। এমন সময় ম্যাটের এমন দাবি নিয়ে জস্পনা শুরু হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ‘পপ সম্রাট মাইকেল জ্যাকসন সব সময় ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় ভুগতেন। মাইকেল বিশ্বাস করতেন, কোনো এক মারণ ভাইরাসের আক্রমণে গোটা মানব জাতির অস্তিত্ব সঙ্কট দেখা দিতে পারে। বাস্তবেও কিন্তু সেটাই হচ্ছে।’

ম্যাট ফিডেস বলছিলেন, ‘মাইকেল সবসময় বলতেন মানব জাতি যে কোনো সময় ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে যাবে এক ভাইরাসের আক্রমণে। মাইকেল বিশ্বাস করতেন, কোনো এক জীবাণুই গ্রাস করবে মানব সভ্যতা। সেই ভয়ে মাইকেল সব সময় নিজের মুখ ঢেকে রাখত মাস্কে। আমি অনেক সময় ওকে মাস্ক খুলে রাখতে বলতাম। কিন্তু ও কথা শুনত না। মাইকেল বলত, সারা বিশ্বে আমার কোটি কোটি অনুরাগী রয়েছে। আমি অসুস্থ হয়ে পড়লে ওদের মন খারাপ হয়ে যাবে। আমি একটি বিশেষ কাজ করতে এই পৃথিবীতে এসেছি। আমি কোনো মতেই নিজের গলা নষ্ট হতে দিতে পারি না।’

সেই সময় মাইকেল সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলেই ফিডেসের দাবি। মাস্ক পরে থাকলেই একমাত্র এসব ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায় বলে মনে করেন জ্যাকসনের দেহরক্ষী। তিনি বলছিলেন, মাইকেল হয়তো আন্দাজ করতে পেরেছিল, কোনো এক ভাইরাস প্রচুর মানুষকে মেরে ফেলবে। ও এমন কিছু আঁচ করতে পেরেছিল বলেই হয়তো আতঙ্কে থাকত। করোনার জন্য কত মানুষ প্রাণ হারাল। আমাদের পৃথিবী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। কীভাবে এর থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে তা কেউ জানে না।’

বর্তমানে ইংল্যান্ডের নর্থ ডিভনের বাসিন্দা ম্যাট বলেছেন, জ্যাকসনের আশেপাশে এত জন কর্মী থাকলেও তাঁর প্রাসাদে দুর্ব্যবহার করার কোনো সম্ভাবনা ছিল না। তিনি সকলের সঙ্গে সুন্দর ব্যবহার করতেন। কাউকে কষ্ট দিতেন না।

বেঁচে থাকাকালীন সময়ে এই সুপারস্টারের বিরুদ্ধে শিশু শ্লীলতাহানির অভিযোগ আনা হয়েছিল কিন্তু কখনও দোষী সাব্যস্ত করা হয়নি। এ বিষয়ে ম্যাট বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ সম্পূর্ণ বানোয়াট ছিল। মাইকেল জ্যাকসন সর্বদা তার বিরুদ্ধে করা যৌন নির্যাতনের সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

সূত্র- দ্য সান ইউকে।

Show More

Related Articles

Back to top button